রবিতে বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন
01:11am, 2nd Feb, 2024


stack photo

নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার জন্মদিন উপলক্ষ্যে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন-৩ এ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভা শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়।


রবি লেডিস্ ক্লাবের সভাপতি ড. নাসরিন লুবনার সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শাহ্ আজম।


প্রধান অতিথি হিসেবে উপাচার্য অধ্যাপক শাহ্ আজম বলেন, বাঙালি জাতীয়বাদ ও বাঙালিত্বের চেতনাকে উজ্জীবিত করার লক্ষ্যে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর যৌথ অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে একটি নতুন শিক্ষা-সংস্কৃতি নির্মাণের জন্য রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় কাজ করছে।


তিনি বলেন, নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে গেলে শুধু অফিসের কাজ-কর্ম করার সুযোগ দিলেই হবে না, নারীদের প্রতি আমাদের মানসিকতারও পরিবর্তন করতে হবে। রবীন্দ্রনাথের মূল ভাবনা ছিলো, নারীর জন্য গৃহের বাইরের জগৎ উন্মোচিত করা এবং নারীকে তার সামর্থ্যের প্রমাণ করার সুযোগ দেওয়া।


তিনি আরও বলেন, যে প্রাচীনত্ব ও হিংস্রতা আমাদের মধ্যে ছিলো, সেখান থেকে বের হয়ে এসে একটি দেশকে পরিচালনার দায়িত্ব নেওয়া, রাষ্ট্রের নেতৃত্ব দেওয়া- সেই কাজটি বাংলাদেশ করতে পেরেছে। আর সেই কারণেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জননেত্রী হয়েছেন।







মহান মুক্তিযুদ্ধে নারীর ত্যাগ ও অবদানের কথা স্মরণ করিয়ে উপাচার্য বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নারীদের সন্মান দিয়েছেন। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে অনেক নারীর পিতা হিসেবে তাদের বিবাহের ব্যবস্থা করে ছিলেন। বাঙালি জাতি গঠনে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের অবদান ছিলো অসীম। শেখ মুজিবুর রহমান বঙ্গবন্ধু হয়ে উঠার পিছনে বঙ্গমাতার অবদান চিরস্মরণীয়।


'আপনার ঘরের নারী যেন নির্যাতনের শিকার না হয়, তিনি যেন তার পূর্ণ অধিকার প্রয়োগ করতে পারেন।’ রোকেয়া দিবসে উপস্থিত সবাইকে এই শপথ নিতে বলেন উপাচার্য।


অনুষ্ঠানে সন্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী লিলি ইসলাম। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাজ্জাদ হায়দার লিটন। এতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন রবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো. ফখরুল ইসলাম।







আলোচনা সভা শেষে জনপ্রিয় ব্যান্ডদল চিরকুট তাদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনার মধ্যে দিয়ে মাতিয়ে তোলে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস।